Wednesday, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭

‘বিএনপির দুর্নীতির কারণেই ২০০৮ সালের নির্বাচনে ভরাডুবি’

মে ১১, ২০১৫ 9 views 0
‘বিএনপির দুর্নীতির কারণেই ২০০৮ সালের  নির্বাচনে  ভরাডুবি’

প্রথম নিউজ ডেস্ক ॥ জামায়াতের বুদ্ধিজীবীরা বিএনপি-জামায়াত সম্পর্ক বিশেষ করে বেগম খালেদা জিয়া ও বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোটের ভবিষ্যৎ মূল্যায়ন করেছেন। জামায়াত মনে করে, বিএনপির দুর্নীতির কারণেই ২০০৮ সালের সংসদ নির্বাচনে বিএনপি-জামায়াতের জোট বড় ধরনের বিপর্যয়ের মুখোমুখি হয়েছিল। কারণ ওই নির্বাচনের আগে সেনাসমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকার বিএনপির দুর্নীতিকে জনগণের সামনে উন্মোচন করেছিল। বিএনপির বিরুদ্ধে আনা দুর্নীতির অভিযোগের সবটাই সত্য নয় তবে নিশ্চিতভাবেই কিছু অভিযোগের সত্যতা রয়েছে।

জামায়াতে ইসলামীর তিন বুদ্ধিজীবীর এ বিরল বিএনপি ভাবনা সম্প্রতি ক্যাম্ব্রিজ ইউনিভার্সিটি প্রকাশিত ‘লিমিটস অব ইসলামিজম জামায়াতে ইসলামী ইন কনটেম্পরারি ইন্ডিয়া অ্যান্ড বাংলাদেশ’ বইয়ে ছাপা হয়েছে। বইটির লেখক কলকাতা প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক মইদুল ইসলাম। বইটিতে বাংলাদেশ ও ভারতের জামায়াতে ইসলামীকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক আদর্শ হিসেবে ইসলামিজমের উপর বিশেষভাবে আলোকপাত করেছে। বহুক্ষেত্রে ভারত ও জামায়াতের নেতৃবৃন্দের চিন্তাভানায় কিভাবে সমসাময়িক আঞ্চলিক ও বিশ্ব পরিস্থিতির প্রতিফলন ঘটে তার একটা তুলনামূলক চিত্র তুলে ধরা হয়েছে।

জামায়াতের দুজন বুদ্ধিজীবীর সাক্ষাৎকার প্রকাশ করা হয়েছে।

বইয়ের তথ্যমতে ২০০৯ সালের জুনে লেখক ঢাকায় এসে নিজেই পৃথকভাবে তাদের সাক্ষাৎকার নিয়েছেন। বইয়ে সাক্ষাৎকারদাতা ও তাদের পরিচয় উল্লেখ করা হয়েছে এভাবে: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি অনুষদের অধ্যাপক চৌধুরী মাহমুদ হাসান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামি ইতিহাস ও সংস্কৃত বিভাগের অধ্যাপক ওমর ফারুক এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক এ টি এম ফজলুল হক।

অধ্যাপক এ টি এম ফজলুল হকের কথায়, ‘সততা ও দুর্নীতির প্রশ্নে  বিএনপি ও জামায়াতের মধ্যে বিরাট পার্থক্য রয়েছে। কিন্তু বাংলাদেশের নির্বাচনী রাজনীতির বাস্তবতা জামায়াত ও বিএনপি উভয়কে আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে নির্বাচনী জোট গড়তে বাধ্য করেছে।’

জামায়াত বুদ্ধিজীবীরা আরও মনে করেন, বিএনপি কোনো একটি মতাদর্শগত দল নয়। দলটি ডানপন্থি, মধ্যপন্থি ও বামপন্থিদের একটি বিচিত্র মিশ্রিত রুপ। তাদের কথায়, বিএনপি যদিও একটি দক্ষিণপন্থি রাজনৈতিক দল এবং সমাজতন্ত্রে বিশ্বাস করে না। তারা কেবল গণতন্ত্রে বিশ্বাসী। একইসঙ্গে দলটি আবদুল মান্নান ভূঁইয়ার মতো সাবেক বামপন্থি নেতাদের জায়গা করে দিয়েছে। বেগম খালেদা জিয়ার কারাবাসকালে তিনি দলের মহাসচিব ছিলেন। খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণা করার পরে তাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়।

২০০৮ সালের নির্বাচনী ফলাফল সম্পর্কে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামি ইতিহাস ও সংস্কৃত বিভাগের অধ্যাপক ওমর ফারুক বলেন, ‘ওই নির্বাচনে মিডিয়া আওয়ামী লীগকে অনেক আনুকূল্য দিয়েছে। উপরন্তু সেনা সমর্থিত সরকার আওয়ামী লীগের জন্য পূর্ব পরিকল্পিতভাবে কাজ করেছে। অবশ্য এটাও ঠিক, বিএনপির অবাধ দুর্নীতির কারণে আওয়ামী লীগ জয়ী হতোই। কিন্তু তারা যে এতটা ব্যাপকতায় জয় পেয়েছে সেটা আওয়ামী লীগের প্রতি তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সমন্বিত সহায়তা দেয়ার পরিণামে ঘটেছে।’  – মানবজমিন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

জনমত জরিপ

অং সাং সু চির নোভেল পুরুষ্কার প্রত্যাহার করার জন্য আপনারা কি একমত ?

View Results

Loading ... Loading ...
ব্রেকিং নিউজ