Wednesday, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭

১ জানুয়ারি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে মহাসমাবেশ করার পরিকল্পনা করছে জাতীয় পার্টি

ডিসেম্বর ২৪, ২০১৪ 25 views 0

প্রথম নিউজ প্রতিনিধি : নতুন বছরের প্রথম দিনে রাজপথে ব্যাপক শোডাউন করবে এরশাদের জাতীয় পার্টি। রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে প্রায় ১০ লাখ মানুষের মহাসমাবেশ করার পরিকল্পনা করছে জাপা। ওইদিন জাপা চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ জাতীয় পার্টির এক বছরের রাজনৈতিক কর্মসূচি ঘোষণার পাশাপাশি বিএনপির প্রতি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেবেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রমতে, মহাসমাবেশ থেকে বিএনপির আন্দোলন ঠেকাতে জাপার নেতা-কর্মীদের প্রতি নির্দেশ দিতে পারেন এরশাদ। একই সঙ্গে মন্ত্রিসভা থেকে জাতীয় পার্টির তিনজন প্রেসিডিয়াম সদস্যকে পদত্যাগ করার বিষয়টিও স্পষ্ট করবেন। একই সঙ্গে মহাসমাবেশে সরকারের তীব্র সমালোচনা করে বক্তব্যও রাখবেন এরশাদ।

জাতীয় পার্টির একাধিক প্রেসিডিয়াম সদস্য জানান, তাদের এই মহাসমাবেশ করতে তিন কোটি টাকার বেশি ব্যয় হচ্ছে। দলের তহবিল ছাড়াও প্রেসিডিয়াম সদস্যসহ জাপার সমর্থকরা এ ব্যয় বহন করছেন। তবে পার্টির একটি গ্রুপ জানিয়েছে,সরকার এক্ষেত্রে সহায়তা করছে। মহাসমাবেশ সফল করতে ইতোমধ্যে ১০১ সদস্যের প্রস্তুতি কমিটিও গঠন করা হয়েছে। ঢাকার আশপাশের জেলা ও উপজেলা থেকে লোক সমাগম করতে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের মহাসমাবেশের মাধ্যমে জাপা প্রমাণ করতে চায়, দলটি সংসদে যেমন বিরোধী দল, তেমনি রাজপথেও বিরোধী দল। কেননা ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের পর থেকে জাতীয় পার্টিকে গৃহপালিত বিরোধী দল হিসেবে আখ্যা দিয়ে আসছে সর্বস্তরের মানুষ ও এমনকি বিদেশিরাও।

এসব বিষয় সম্পর্কে জাপা চেয়ারম্যানের সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি কথা বলেননি। জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদের যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘আমরা সরকারে আছি আবার বিরোধী দলে আছি-কেন সরকার আমাদের সাহায্য করবে না? অবশ্যই সাহায্য করবে এবং করছে।’

তবে জাপার মহাসচিব জিয়াউদ্দিন বাবলু মহাসমাবেশ করতে সরকারের অর্থ সহায়তা নেওয়ার কথা অস্বীকার করেছেন। তিনি বলেছেন, ‘সরকার কোনো সহযোগিতা করছে না। আমরা জ্বালাও-পোড়াওয়ের রাজনীতি করি না। সরকারের ভালো কাজের প্রশংসা করি, মন্দ কাজের সমালোচনা করি। সরকারের অনেক কাজের সমালোচনা করে আমরা সংসদ থেকেও ওয়াকআউট করেছি। প্রকৃত অর্থেই আমরা বিরোধী দল। আর মহাসমাবেশে সরকারের সহযোগিতার প্রশ্নই আসে না। মহাসমাবেশেও সরকারের সমালোচনা করা হবে।’ তিনি জানান, ‘মহাসমাবেশ সফল করতে ঢাকার আশপাশ জেলাগুলোতে সফর করা হয়েছে। বর্তমানে গাজীপুরে সমাবেশ করছি।’

মহাসমাবেশের ব্যাপক প্রস্তুতি হিসেবে ইতোমধ্যে মাঠের অনুমোদন নেওয়া হয়েছে। বিলবোর্ড ও পোস্টারে ছেয়ে গেছে ঢাকা মহানগরের বিভিন্ন এলাকা। অন্যদিকে বিলবোর্ডের বিষয় নিয়ে পুলিশের উচ্চপদস্থ এক কর্মকর্তা জানান, নির্দেশ পেলে বিলবোর্ড সরানো যাবে। নির্দেশ মিলছে না।

Your email address will not be published. Required fields are marked *

জনমত জরিপ

অং সাং সু চির নোভেল পুরুষ্কার প্রত্যাহার করার জন্য আপনারা কি একমত ?

View Results

Loading ... Loading ...
ব্রেকিং নিউজ