রবিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৭

নারায়ণগঞ্জের শহরে দুই দলের সংঘর্ষের রূপ

ডিসেম্বর ২০, ২০১৪ 363 views 0

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি ঃ
বঙ্গবন্ধুকে কটূক্তি করে তারেক রহমানের দেওয়া বক্তব্যকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে নারায়ণগঞ্জের রাজনৈতিক পরিস্থিতি। সরকারি দলের বিপরীতে বিরোধী দলের নেতা-কর্মীরাও পাল্টা জবাবের ঘোষণা দিয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার সরকারি দলের সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা জেলা বিএনপি কার্যালয়ে ভাঙচুর চালানোর পর তাৎক্ষণিক প্রতিবাদ সভা করে তাদের প্রতিহত করার ঘোষণা দিয়েছে বিএনপির নেতা-কর্মীরা। গতকাল শুক্রবারও বিক্ষোভ কর্মসূচি চলাকালে পুলিশের বাধার মুখে পড়ে বিএনপি ও এর অঙ্গদলের নেতা-কর্মীরা। এ সময় সরকারি দলের নেতা-কর্মীরা কিছু দূরেই জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে অবস্থান নিলে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। নগরবাসীর আশঙ্কা, পরিস্থিতি এভাবে চলতে থাকলে যেকোনো সময় তা সংঘর্ষে রূপ নিতে পারে।

জানা যায়, গত এক দশকে নারায়ণগঞ্জ শহরে শুধু শিবিরের নাশকতা ছাড়া আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে রাজনৈতিক পরিবেশ শান্তই ছিল। বিএনপির কোনো রাজনৈতিক কর্মসূচিতে আওয়ামী লীগ বা সহযোগী সংগঠনের পক্ষ থেকে বাধা দেওয়ার কোনো ঘটনা ঘটেনি। কিন্তু ১৫ ডিসেম্বর ইস্ট লন্ডনের দি অট্রিয়াম অডিটরিয়ামে যুক্তরাজ্য বিএনপি আয়োজিত বিজয় দিবসের এক আলোচনা সভায় তারেক রহমান বঙ্গবন্ধুকে ‘রাজাকার, পাকবন্ধু’ অভিহিত করে বলেন, মুক্তিযুদ্ধে বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের কোনো ভূমিকা নেই। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে এমন বক্তব্যের পর ফুঁসে ওঠে নারায়ণগঞ্জের সরকারি দলের নেতা-কর্মীরা। গত বৃহস্পতিবার নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপি কার্যালয়ে ভাঙচুর চালায় সরকারি দলের বিক্ষুব্ধ নেতা-কর্মীরা। একই সময়ে জেলা বিএনপি কার্যালয়ের সামনে বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের কুশপুত্তলিকা দাহ করা হয়। দলীয় কার্যালয় ভাঙচুরের প্রতিবাদে ওই দিন রাতেই প্রতিবাদ সভা করে নগর বিএনপির নেতা-কর্মীরা। সেখানে তারা হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলে, ইট মারলে পাটকেল খেতে হবে। গতকালও দলীয় কার্যালয় ভাঙচুরের প্রতিবাদে বিক্ষোভ কর্মসূচির আয়োজন করে মহানগর যুবদল। জেলা বিএনপি কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এ কর্মসূচিতে অংশ নিতে বিভিন্ন ওয়ার্ড থেকে শত শত নেতা-কর্মী যোগ দিতে থাকলে মাত্র ১০০ গজ দূরে জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে সমবেত হয় জেলা ও শহর যুবলীগের কয়েক শ নেতা-কর্মী। পরিস্থিতি সংঘাতের দিকে যেতে পারে-এমন আশঙ্কায় পুলিশ বিএনপির নেতা-কর্মীদের পার্টি অফিসের সামনেই ঘেরাও করে রাখে। ফলে পণ্ড হয়ে যায় তাদের কর্মসূচি।

 

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  • সর্বশেষ
  • সবচেয়ে পঠিত

জনমত জরিপ

অং সাং সু চির নোভেল পুরুষ্কার প্রত্যাহার করার জন্য আপনারা কি একমত ?

View Results

Loading ... Loading ...
ব্রেকিং নিউজ