শনিবার, ১৮ নভেম্বর, ২০১৭

ঠাকুরগাঁওয়ে ৪শ বিঘা বোরো ধান ক্ষেতের ব্যাপক ক্ষতি

মার্চ ১৮, ২০১৭ 650 views 0
ঠাকুরগাঁওয়ে ৪শ বিঘা বোরো ধান ক্ষেতের ব্যাপক ক্ষতি

মো.সাদ্দাম হোসেন, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি : বোরো ধান ক্ষেতে এ্যালমিক্স নামক আগাছা নাশক ওষুধ প্রয়োগ করে ক্ষতির মুখে পড়েছে ঠাকুরগাঁওয়ে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার ১৫টি গ্রাম ও সদর উপজেলার গড়েয়া ইউনিয়নের ৫টি গ্রামের শত শত কৃষক। প্রায় ৪শ বিঘা জমির ধানের চারা বাড়ছেনা আর বিবর্ণ হয়ে পড়ায় ফলন নিয়ে দুশ্চিন্তায় চাষিরা।

 

বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার ধনতলা ইউনিয়নের খোচাবাড়ী গ্রামের অথিন্দ্রনাথ রায় বলেন, তিনি লাহিড়ী হাটের লুৎফরের দোকান থেকে আগাছা নাশক কিনে বোরো ধান ক্ষেতে ছিটিয়ে দেন। এর ক’দিন পরে সবুজ ধান গাছ হলদে হয়ে যায়। গাছও বাড়ছেনা। একই অভিযোগ পাশের গ্রামের মোসলেম উদ্দীনের।

 

চাকদহ গ্রামের জাহাঙ্গীর আলম জানায়, ধানের চারা রোপনের পর নিড়ানী খরচ বাঁচাতে (পেট্রোকেম অ্যাগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড এর ) মেটসালফুরান মিথাইল ও ক্লোরিমিউরোন ইথাইন গ্র“পের এ্যালমিক্স নামে আগাছা নাশক ওষুধ প্রয়োগ করে।

 

এতে কয়েক দিনেই সবুজ তরতাজা চারা হয়ে যায় বিবর্ণ। আর গাছগুলোর বৃদ্ধি না পাওয়ায় দিশেহারা হয়ে পড়েছে চাষিরা। বাড়তি খরচ আর মাথার ঘাম পায়ে ফেলেও কুলকিনারা পাচ্ছেনা তারা। ক্ষতিপুরণের দাবিতে বালাইনাশক ডিলারদের দোকানে প্রতিদিনই ধর্ণা দিচ্ছে তারা। চাষিদের অভিযোগ, ওই কোম্পানীর আগাছা নাশক ওষুধ ব্যবহার করে ধানক্ষেত পুড়ে গেছে।

 

এতে ফলন কম হলে লাভতো দুরের কথা লোকসান গুনতে হবে তাদের। ওই আগাছা নাশক ওষুধ বিক্রি বন্ধ করে কৃষি বিভাগ চাষিদের ক্ষতিপুরণ আদায়ের আশ্বাস দিয়ে ক্ষেতে হরমোন, জিংক ও ছত্রাকনাশক ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছে।

 

এদিকে কৃষিবিভাগ কোম্পানীর ওই ওষুধ বাজারে বিক্রি বন্ধ করে দিয়ে কোম্পানীটির পরিবেশক ক্ষতিপুরণ আদায়ে আশ্বস্ত করেছে কৃষকদের।

 

এ বিষয়টি নিশ্চিত করেন কৃষিসম্প্রসারন অধিদপ্তরের ঠাকুরগাঁওয়ের উপ-পরিচালক কেএম মাউদুদুল ইসলাম।

Your email address will not be published. Required fields are marked *

জনমত জরিপ

অং সাং সু চির নোভেল পুরুষ্কার প্রত্যাহার করার জন্য আপনারা কি একমত ?

View Results

Loading ... Loading ...
ব্রেকিং নিউজ