Wednesday, ১৬ আগষ্ট, ২০১৭

বগুড়ায় জমে উঠেছে ঈদ কেনাকাটা, পাল্লা দিয়ে বাড়ছে পোশাকের দাম

জুন ১৬, ২০১৭ 855 views 0
বগুড়ায় জমে উঠেছে ঈদ কেনাকাটা, পাল্লা দিয়ে বাড়ছে পোশাকের দাম

আবদুল ওহাব, বগুড়া প্রতিনিধি : বগুড়ায় জমে উঠেছে ঈদের কেনাকাটা। শহরের ফুটপাত থেকে নামীদামী শপিংমল ও বিপনীবিতান এখন সকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত সরগরম ক্রেতা-বিক্রেতার পদচারনায়।

 

যুবতী ও কিশোরীরা ব্যাস্ত হয়ে পড়ছে প্রসাধনী কিনতে। নিউ মার্কেট, আলতাফ আলী মার্কেট, জামিল শপিং কমপ্লেক্স, হকার্স মার্কেট, জলেশ্বরীতলা মার্কেট ও রেলওয়ে মার্কেট গুলোতে এখন ক্রেতা সাধারনের উপচে পড়া ভীড়।

 

কর্মক্ষম ছেলে পিতামাতা, শ্যালক-শ্যলীকা ও ছোট-ভাইবোনের জন্য মনের মত পোশাক কিনতে ব্যাস্ত। আবার চাকুরীজীবি পিতামাতা ব্যাস্ত তার আদরের সন্তানের পছন্দসই পোশাক কেনার জন্য। তাও হতে হবে প্রত্যেকের চাহিদামত। দাম যাইহোক বাবার কাছে জেদ ধরছে পছন্দের জামা কেনার জন্য। আর সন্তানের মুখে হাসি ফুটাতে পকেটের টাকা শেষ করে হলেও কেনাকাটা করছে অবাধে।

 

প্রত্যাকের এমন চাহিদা আর ছোট ছোট ছেলেমেয়েদের অবুঝ বায়নাকে পুঁজি করে দোকানীরা পাল্লা দিয়ে বাড়িয়ে দিচ্ছে পোশাকের দাম। তাদের ধারনা বছরের এই সময়টাই টাকা ইনকামের উপযুক্ত সময়। বিশেষ করে মেয়েদের এবং শিশুদের পোশাকে দামের ব্যাতিক্রম চোখে পড়ারমত।

 

এক সপ্তাহ আগে যে থ্রীপিচের দাম ছিল ৮০০ টাকা, একই জামা মাত্র কয়েক দিনের ব্যবধানে এ সপ্তাহে বিক্রি করছে ১২০০ থেকে ১৫০০ টাকায়। অপরদিকে কাজকরা থ্রীপিছ যেগুলো ছিল ১২০০ থেকে ১৫০০ টাকা, সেগুলো এখন ২০০০ থেকে ৩০০০ টাকা।

 

এসবের কারন সম্পর্কে জানতে চাইলে দোকানীরা বলেন, ঈদ মার্কেটে এমন হয়েই থাকে। তবে এক্ষেত্রে ধনীদের অসুবিধা না হলেও বিপাকে পড়েছেন মধ্যবিত্ত ও নিম্ন আয়ের মানুষেরা। তাদের সব কিছুই হিসেবমত করতে হচ্ছে। তাই অনেক ক্ষেত্রে পোশাক ক্রয় করতে অবুঝ ছেলেমেয়েরা মনেরমত পোশাক না পেয়ে কান্নাকাটিও করছে মার্কেটের ভিতরেই।

 

সেক্ষেত্রে অভিভাবকগণ আপ্রান চেষ্টা করছেন নানা ধরনের ভুলিয়ে ভালিয়ে বোঝানোর জন্য। এসবের জন্য ক্রেতা বিক্রেতার মধ্যে চলছে দরকষাকষি। অনেক সময় বাক বিতন্ডাও হয়।  এক্ষেত্রে ক্রেতা সাধারনের মধ্যে রয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। কেউ বলছেন ঈদের পোশাকে দাম একটু বেশী হবেই। আবার কেউ বলছেন সাধারন পোশকের দাম আকাশচুম্বি এবং মধ্যবিত্ত ও নিম্ন আয়ের মানুষের নাগালের বাইরে।

 

তবে ক্রয় বিক্রয়ের নানা ধরনের মিশ্র প্রতিক্রিয়ার মাঝেও সমাজের সকল শ্রেনী পেশার মানুষের মনে এখন বিরাজ করছে ভালবাসার অনাবীল সুখ ও ঈদ আনন্দ ।

Your email address will not be published. Required fields are marked *

জনমত জরিপ

অং সাং সু চির নোভেল পুরুষ্কার প্রত্যাহার করার জন্য আপনারা কি একমত ?

View Results

Loading ... Loading ...
ব্রেকিং নিউজ