বৃহস্পতিবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭

ডোমারে বাড়ীতে গৃহকর্তাকে হত্যা

সেপ্টেম্বর ৯, ২০১৭ 111 views 0
ডোমারে বাড়ীতে গৃহকর্তাকে হত্যা

হরিদাস রায়, ডোমার প্রতিনিধিঃ নীলফামারীর ডোমারে ঘড়ে ঢুকে গৃহকর্তা অতুল চন্দ্র রায় (৬০)কে একা পেয়ে টেপ দিয়ে হাতা, পা ও মুখ বেধে হত্যা করে বাড়ীতে জমানো দুর্বত্তরা ৬৪ হাজার টাকা চুরি করে পালিয়ে যায়। ঘটনাটি ঘটে বৃহস্পতিবার দিন দুপুরে উপজেলার বোড়াগাড়ী ইউনিয়নের নয়ানী বাকডোকরা (খামাতপাড়া) গ্রামে। নিহত অতুল চন্দ্র নয়ানী বাকডোকরা গ্রামের মৃত বিষ্টরাম রায়ের ছেলে।

 

নিহত অতুল রায়ের মেয়ের ছেলে সুমন জানান, সকালে আমার দীদা (নানী) আমার মামীকে আনার জন্য পাশ্ববর্তী ডিমলার ডালিয়ায় যান। বাড়ীতে দাদু (নানা) অতুলরায় একাই থাকবে বলে আমাকে তার সাথে থাকার জন্য বলে।

 

আমি সন্ধা ৬টার দিকে বই খাতা নিয়ে নানুর বাড়ীতে এসে দেখি বাড়ীর গেট ভিতর দিক দিয়ে বন্ধ রয়েছে। প্রায় আধাঘন্টা দাদুকে ডাকাডাকির পর সারা শব্দ না পেয়ে আমি দেয়াল টপকে নানুর বাড়ীতে প্রবেশ করে ঘড়ে ঢুকতেই দেখি বাড়ীর সব দরজা খোলা।

 

ভিতরে প্রবেশ করে দেখি ঘড়ের দরজায় নানুর হাত, পা ও মুখ টেপ ও শাড়ী দিয়ে বাধা। আমি দৌড়ে বাড়ীর পাশেই আমার মামার বাড়ীতে গিয়ে তাদের ডেকে আনি। তারা সহ আমি হাত, পার বাধন খুলে নানুকে অজ্ঞান অবস্থায় স্থানীয় ক্লিনিকে নিয়ে গেলে ডাক্তার তাকে মৃত্যু ঘোষনা করেন।

 

নিহত অতুলের ভাতিজা শ্যামল রায় বলেন,  আমার কাকাত ভাই বিপুল দক্ষিন কোরিয়ায় থাকেন। বাড়ীতে আমার কাকা, কাকী থাকে। আর আজ সকালে কাকী আমার প্রবাসি ভাইয়ের বাপের বাড়ী ডালিয়ায় তার বৌকে আনতে যায়। বাড়ীতে আমার কাকা একাই ছিল। এই সুযোগে কে বা কাহারা বাড়ীতে প্রবেশ করে কাকাকে টেপ ও শাড়ী দিয়ে বেধে হত্যা করে পালিয়ে যায়।

 

ডোমার থানার অফিসার্স ইনচার্জ মোঃ মোকছেদ আলী ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, এ বিষয়ে একটি হত্যা মামলা হয়েছে ঘটনাটি গূরূত্বের সাথে তদন্ত করা হচ্ছে।

 

Your email address will not be published. Required fields are marked *

জনমত জরিপ

অং সাং সু চির নোভেল পুরুষ্কার প্রত্যাহার করার জন্য আপনারা কি একমত ?

View Results

Loading ... Loading ...
ব্রেকিং নিউজ